• বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English

ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ’র চেয়ারম্যান ইমরানের দুর্নীতি ফাঁস

অন্যায়ের প্রতিবাদ / ৩৮৩ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশকাল ► সোমবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২১

মো. ফরহাদ হোসেন ফুয়াদ: অনুমোদন নেই তবুও শিক্ষার্থী ভর্তি! উপাচার্যকে লাঞ্চিতকরণ, অবৈধভাবে একাধিক ব্যাংকে হিসাব এবং একক আধিপত্য বিস্তার করে ভূয়া ভাউচার বানিয়ে কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এসেছে ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ’র চেয়ারম্যান ইমরানের চৌধুরীর নামে। শুধু তাই নয়, নিজের নামের পূর্বে ভূয়া ডক্টরেট ডিগ্রী বসিয়ে চেয়ারম্যান ইমরান চৌধুরীই এখন ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ এর সর্বেসর্বা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ভিতরের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে এটা কোন বিশ্ববিদ্যালয় নয়, বরং কোচিং বাণিজ্য! মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয় নেই কোন অনুমোদন। অথচ এরপরেও গত আড়াই বছর ধরে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তি করানো হচ্ছে শিক্ষার্থীদের।

সরকারী নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে একের পর এক অনিয়ম ও দুর্নীতি করে যাচ্ছেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ড. মো.ইমরান চৌধুরী। শিক্ষার্থীদেরকে খেলনার পুতুল সাজিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন কোটি কোটি টাকা। শুধু শিক্ষার্থীরাই ভুক্তভূগী না, বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরে প্রতিষ্ঠানের উপাচার্যকে পদ থেকে জোরপূর্বক অব্যাহতি পত্রে স্বাক্ষর করানোর মত ন্যাক্কারজনক অভিযোগ রয়েছে চেয়ারম্যান ইমরানের বিরুদ্ধে।


►► আরো দেখুন: ইনস্টাগ্রাম থেকে মাসে আয় করুন ৫০ হাজার টাকা

►► আরো দেখুন: শুধু ইমেইল পাঠিয়ে আয় করুন ঘরে বসে

►► আরো দেখুন: চাকরী পাচ্ছেন না? সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে জীবন গড়ুন


এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য আসে সময়ের বার্তার কাছে। বরিশাল সিএন্ডবি রোডস্থ ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজের অনিয়মের বিষয় উল্লেখ করে ২০১৯ সালের ১৮ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের মঞ্জুরী কমিশনের পরিচালক ফখরুল ইসলাম কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে এসব দুর্নীতি বন্ধ করার নির্দেশ দিলেও বন্ধ সেই নির্দেশে কর্ণপাত করেননি চেয়ারম্যান ইমরান চৌধুরী।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, বরিশাল সিএন্ডবি রোডস্থ ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ নামক একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসের ১৪ তারিখ যাত্রা শুরু করে। প্রতিষ্ঠানটির মালিকানা একাধিক হলেও চেয়ারম্যান ড. (কথিত) ইমরান চৌধুরী’র একক আধিপত্যে চলছে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি। ভূয়া ভাউচার বানিয়ে হাতিয়ে নেন কয়েক কোটি টাকা। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির জন্য ২০১৯ সালের ১৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন এ প্রতিষ্ঠানটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো.জাহাঙ্গীর আলম খান।

অভিযোগে উল্লেখ করেন, তিনি মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসের ১৪ তারিখ থেকে বরিশাল সিএন্ডবি রোডস্থ ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ নামক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উপাচার্য হিসাবে কর্মরত আছেন। এর আগে ২০১৭ সালের পহেলা ফেব্র“য়ারী থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত একই প্রতিষ্ঠানে অধ্যাপক (অর্থনীতি) পদে কর্মরত ছিলেন।

পরবর্তীতে বোর্ড অব ট্রাষ্টিজ কর্তৃক সিদ্ধান্ত নিয়ে পহেলা এপ্রিল থেকে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য পদে দায়িত্ব প্রদান করেন। দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় একই বছরের জুলাই মাসের ১৫ তারিখ সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রমের উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি। ২০১৭ সালের ১৯ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী উপাচার্য নিয়োগের জন্য ‘বিওটি’ কর্তৃক প্রস্তাব প্রেরণ করা হলে ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বর রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান প্রফেসর ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম খান।


►► আরো দেখুন: ফেসবুক থেকে যেভাবে মাসে ১ লক্ষ টাকা ইনকাম করবেন


তিনি দাবী করেন, দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ অনুসারে পরিচালনার উদ্যোগ গ্রহণ করা হলে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ইমরান চৌধুরী সেখানে দ্বিমত পোষণ করেন। ইমরান সরকারী আইন অমান্য করে এককভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেন। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য, একক সিদ্ধান্তে কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ, অনুমতি না থাকার পরেও শিক্ষার্থীভর্তি, কোন প্রকার টেন্ডার/অনুমোদন প্রক্রিয়া অনুসরণ না করা, একাধিক ব্যাংকে প্রতিষ্ঠানের নামে হিসাব নম্বার খুলে লেনদেন করাসহ নানা অনিয়ম।

২০১৯ সালের ২২ সেপ্টেম্বর বেসরকারী মঞ্জুরী কমিশনের একটি প্রতিনিধি দল ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজে পর্যবেক্ষণ করে বেশ কিছু অনিয়ম-দুর্নীতির প্রমাণ পেয়েছেন। এসব অনিয়ম দূর করার জন্য চেয়ারম্যান ইমরান চৌধুরীকে চিঠি দেয়া হলেও কর্ণপাত করেননি তিনি। এ বিষয় ড. ইমরান চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরবর্তীতে ক্ষুদে বার্তা পাঠানোর পরেও অভিযোগের বিষয়ে তার কাছ থেকে কোন জবাব পাওয়া যায়নি।


এই বিভাগের আরো সংবাদ

আমাদের ফেসবুক পেজ

Facebook Pagelike Widget